কোরীয় যুদ্ধ

korea1

দক্ষিণ কোরিয়া এবং উত্তর কোরিয়ার মধ্যকার তিন বছরের অধিক সময় ব্যাপী (২৫ জুন ১৯৫০ – ২৭ জুলাই ১৯৫৩) সংঘটিত হওয়া একটি আঞ্চলিক সামরিক যুদ্ধ ইতিহাসে কোরীয় যুদ্ধ নামে পরিচিত। উ: কোরিয়ার পক্ষে সোভিয়েত ইউনিয়ন ও গণপ্রজাতন্ত্রী চীন এবং দ: কোরিয়ার পক্ষে জাতিসংঘের সন্মতিতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও অন্য কয়েকটি দেশ প্রত্যক্ষভাবে এই যুদ্ধে অংশ গ্রহণ করে। ১৯৫৩ সালে কোরীয় যুদ্ধ শেষ হলেও এ ব্যাপারে আনুষ্ঠানিক কোনো চুক্তি হয়নি। জাতিসংঘ বাহিনীর পক্ষে যুক্তরাষ্ট্র এবং উত্তর কোরীয় সেনাবাহিনী ও চীনের মধ্যে স্বাক্ষরিত অস্ত্রবিরতি চুক্তির মাধ্যমে ওই যুদ্ধের অবসান ঘটে। এই যুদ্ধে আড়াই থেকে তিন মিলিয়ন মানুষ হতাহত হয়েছিল। বিস্তারিত 

বিশ্বের জনপ্রিয় ৫০টি ফুল

Flowers
“Flowers are the sweetest things God ever made, and forgot to put a soul into.”

ভালোবাসা, পবিত্রতা ও সৌন্দর্যের প্রতীক ফুল। দেশ-বিদেশের জনপ্রিয় অনেক ফুলের নামের সাথে আমদের পরিচয় থাকলেও এগুলো সম্পর্কে অনেকের বাস্তব ধারণা নেই। আবার এমন অনেক ফুল আছে যা সচরাচর চোখে পড়ে অথচ নাম জানি না! বিশ্বের জনপ্রিয় ৫০টি ফুলের সংক্ষিপ্ত পরিচিতি ও চিত্র এখানে দেওয়া হলো। ছবিগুলো ইন্টারনেট থেকে সংগৃহীত। বিস্তারিত 

নিঝুম দ্বীপ

Nijum Dwip

বঙ্গোপসাগরের বুকে জেগে উঠছে ছোট-বড় অসংখ্য চর। ৭০’এর দশকে এধরনের একটি চরে বন বিভাগের উদ্যেগে কিছু কেওড়া বৃক্ষ রোপণ এবং সেইসাথে সুন্দরবন থেকে চার জোড়া চিত্রা হরিণ এনে অবমুক্ত করা হয়। এরপর সময়ের বিবর্তন ও প্রকৃতির অনুকূল প্রভাবে সে চর অগণিত শ্বাসমূলে ভরা কেওড়া বনের এক সবুজ নিরব-নিস্তব্ধ দ্বীপ ও চিত্রা হরিণের নিঝুম অভয়ারণ্যে পরিণত হয়ে বর্তমানে ‘নিঝুম দ্বীপ’ হিসেবে পরিচিতি লাভ করে। নৈসর্গিক সৌন্দর্য, সৈকত, হাজার পাখির মেলা, সমুদ্রের বুকে হেলে পড়া অস্তগামী সূর্যের অপরূপ দৃশ্য, সমুদ্রের স্বচ্ছ নোনা জল নিঝুম দ্বীপকে ভ্রমণবিলাসী মানুষের জন্য অত্যন্ত আকর্ষনীয় করে তোলে। বিশেষ করে যারা জনাকীর্ণ নগর জীবনের শব্দদূষণ আর অগণিত মানুষের কোলাহল থেকে মুক্ত হয়ে কিছু সময়ের জন্য প্রাকৃতিক নৈসর্গের নিঝুম পরিবেশে সাগর থেকে ধেয়ে আসা নির্মল-মিষ্টি হাওয়ায় প্রশমিত হয়ে উম্মুক্ত প্রান্তরে খোলা আকাশের নিচে নীরব-নিস্তব্ধতায় হারিয়ে যেতে চান তাদের জন্য উত্তম স্থান এই নিঝুম দ্বীপ। বিস্তারিত 

জিকা ভাইরাস

zika virus

গতবছর ব্রাজিলে নতুন করে জিকা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর খোঁজ মেলার পর মাত্র চার মাসের মধ্যে বহু দেশে তা ছড়িয়ে পড়ে। বিশেষ করে ব্রাজিলে গর্ভবতী নারীদের উপর চালানো গবেষণায় জিকা ভাইরাসের সঙ্গে ছোট মাথার শিশু জন্মগ্রহণের যোগ থাকার ধারণাটি স্পষ্ট হয়ে ধরা পড়ায় জিকা ভাইরাস (Zika Virus) বর্তমানে বহুল আলোচিত বিষয়। দক্ষিণ আমেরিকার পর জিকা ভাইরাস দ্রুত ছড়িয়ে পড়ায় বিশ্বময় জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। বাংলাদেশও এই সতর্কতার বাইরে নয়। মশাবাহিত এই ভাইরাসটির সংক্রামণ ঠেকাতে সমন্বিত প্রচেষ্টা চালাতে হবে। তাই এই রোগ সম্পর্কে আমাদের সঠিক জ্ঞান থাকা জরুরি। যে কোনো রোগ প্রতিরোধ ও প্রতিকারে প্রয়োজন মানুষের সচেতনতা ও সাবধানতা। বিস্তারিত 

হিন্দুধর্ম

om

হিন্দুধর্মকে বলা হয় পৃথিবীর সবচেয়ে পুরাতন ধর্ম। জনসংখ্যার বিচারে হিন্দুধর্ম বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম ধর্ম, এই ধর্মের অনুগামীদের সংখ্যা ১০০ কোটিরও বেশি। ভারত এবং নেপালের সংখ্যাগরিষ্ট মানুষ হিন্দু ধর্মাবলম্বী। এছাড়া বাংলাদেশে, মরিশাসে ও ইন্দোনেশীয় দ্বীপ বালিতে উল্লেখযোগ্য সংখ্যায় হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা বাস করেন। জনসংখ্যার বিচারে হিন্দুধর্ম খ্রিষ্টধর্ম ও ইসলামের পরেই বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম ধর্মমত। ‘হিন্দু’ শব্দটি সিন্ধু নদ থেকে উদ্ভূত হয়েছে। ‘সিন্ধু’ দ্বিতীয় সহস্রাব্দে এ অঞ্চলের অধিবাসীরা আর্যদের দ্বারা ব্যবহৃত একটি সংস্কৃত শব্দ। শব্দটির মাধ্যমে সিন্ধু নদ অববাহিকায় বসবাসকারী জনগোষ্ঠীকে বোঝানো হত। হিন্দুধর্ম একাধিক ধর্মীয় ঐতিহ্যের সমন্বয়ে গঠিত। এই ধর্মের কোনো একক প্রতিষ্ঠাতা নেই। হিন্দুধর্মের প্রচুর শাস্ত্রগ্রন্থের মধ্যে বেদ সর্বাপেক্ষা গুরুত্বপূর্ণ। হিন্দুদের উল্লেখযোগ্য ধর্মানুশীলন পূজা, অর্চনা, ধ্যান, বার্ষিক অনুষ্ঠান এবং তীর্থযাত্রা। হিন্দুধর্মে ঈশ্বরধারণাটি অত্যন্ত জটিল। হিন্দুরা বিশ্বাস করেন যে মানুষের আত্মা শাশ্বত। হিন্দুধর্মে দৈব ব্যক্তিত্বদের দেব বা দেবী নামে অভিহিত করা হয়। বিস্তারিত 

এক নজরে নোবেল শান্তি পুরস্কার

nobel-prize
১৮৯৫ সালে সুইডেনের বিজ্ঞানী আলফ্রেড নোবেল মৃত্যুর পূর্বে একটি উইল-এর মাধ্যমে নোবেল পুরস্কার প্রচলন করেন। এই উইল-এর দলিলে তিনি পাঁচটি বিষয়ে পুরস্কারের জন্য তাঁর সম্পত্তির সিংহভাগ বরাদ্দ করে যান। বিষয়গুলো হল: পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন, চিকিৎসাবিজ্ঞান ও শরীরতত্ত্ব, সাহিত্য, এবং শান্তি। ১৯০১ সাল থেকে সারা বিশ্বের বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে উল্লেখিত পাঁচটি শাখায় অনন্য কৃত্ত্বিত্ব তথা গবেষণা, উদ্ভাবন এবং মানবকল্যাণমূলক অসাধারণ কর্মকাণ্ডের জন্য এই পুরস্কার প্রদান করা হচ্ছে। নোবেল যখন তাঁর উইলের পরিকল্পনা করেন, তখন নরওয়ে সুইডেনের শাসনাধীন ছিল। নোবেলের ইচ্ছানুসারে শুধুমাত্র শান্তিতে নোবেল পুরস্কার প্রদান করা হয় অসলো, নরওয়ে থেকে। বাকি ক্ষেত্রে স্টকহোম, সুইডেন থেকে এই পুরস্কার প্রদান করা হয়। বিস্তারিত 

তেল উৎপাদনে শীর্ষ ১০ দেশ

petroleum1

বিশ্ব অর্থনীতিতে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে তেল। তাই তেল সমৃদ্ধ দেশগুলোর অর্থনৈতিক অবস্থান দৃঢ় ও মজবুত। যে কোন দেশের অর্থনৈতিক ভিত্তি, বিদ্যুৎ, কলকারখানা এবং যানবাহনের শক্তির (energy) অন্যতম উৎস খনিজ তৈল বা পেট্রোলিয়াম। দুর্ভাগ্যবশতঃ এই প্রাকৃতিক খনিজ তৈলের অধিকারী বিশ্বের হাতেগোনা কয়েকটি দেশ। বিশ্বের অনেক দেশকে তেলের জন্য প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে তেল উৎপাদনকারী দেশগুলোর ওপর নির্ভর করতে হয়। ইন্টারন্যাশনাল এনার্জি এজেন্সির (আই.ই.এ) তথ্য অনুযায়ী বিশ্বের মোট উৎপাদিত তেলের অধিকাংশ উৎপাদন করে উৎপাদনে শীর্ষে থাকা দশটি দেশ। বিস্তারিত 

মাদার তেরেসা (১৯১০-১৯৯৭)

Mother Teresa

মহীয়সী নারী মাদার তেরেসা আর্তমানবতার সেবায় নিজেকে নিয়োজিত করে সারাবিশ্বের মানুষের হৃদয়ে আজো অমর হয়ে আছেন। আলবেনিয়ান বংশোদ্ভুত মাদার তেরেসা রোমান ক্যাথলিক সম্প্রদায়ভুক্ত বিশ্বখ্যাত সমাজসেবিকা। তাঁর জন্ম ১৯১০ সালের ২৬ আগস্ট আজকের মেসিডোনিয়ার স্কোপিয়ে, মৃত্যু ১৯৯৭ সালের ৫ সেপ্টেম্বর কলকাতার মাদার হাউসে। ১৯৫০ সালে কলকাতায় তিনি মিশনারিজ অফ চ্যারিটি নামে একটি সেবাপ্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করেন। সুদীর্ঘ ৪৫ বছর ধরে তিনি দরিদ্র, অসুস্থ, অনাথ ও মৃত্যুপথযাত্রী মানুষের সেবা করেছেন। ১৯৭৯ সালের ১৭ অক্টোবর তিনি তাঁর সেবাকার্যের জন্য নোবেল শান্তি পুরস্কার ও ১৯৮০ সালে ভারতের সর্বোচ্চ অসামরিক সম্মান ‘ভারতরত্ন’ লাভ করেন।

বিস্তারিত 

তেজস্ক্রিয়তা

[ভূমিকা – সংজ্ঞা – পরিমাপ – আয়ু – উৎস – ব্যবহার – প্রভাব – প্রতিকার ও চিকিৎসা – শেষকথা]

ভূমিকা

radioactive_warning_sign

‘তেজস্ক্রিয়তা’ শব্দটি বিজ্ঞানের বিষয় হলেও ১৯৮৬ সালে চেরনোবিল দুর্ঘটনার পর এটি প্রথমবারের মত সাধারণ মানুষের দৃষ্টি আকর্ষণ করে। ‘তেজস্ক্রিয়তা’ এখন দৈনন্দিন বিজ্ঞানের অংশ। তবে দুঃখজনক হলেও সত্যি যে বেশিরভাগ আলোচনায় (পত্র-পত্রিকা, ব্লগ ও ফোরাম) তেজস্ক্রিয়তাকে কখনো অতিরঞ্জিত, কখনও অস্পষ্ট, আবার কখনও ভুলভাবে ব্যাখ্যা করা হয়েছে। তেজস্ক্রিয়তাকে বুঝতে হলে বিজ্ঞানের ছাত্র হওয়ার প্রয়োজন নেই, এর সম্পর্কে মৌলিক ধারণার জন্য প্রয়োজন একজন সচেতন নাগরিকের জানার ইচ্ছা ও আগ্রহ। ইদানীং বিশেষ করে বিদ্যুৎ উৎপাদনে পারমাণবিক চুল্লীর ব্যবহারের কারণে তেজস্ক্রিয়তা নিয়ে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা হয়ে থাকে। বিস্তারিত 

বিশ্বের বৃহত্তম

বিশ্বের বৃহত্তম সাগর, দেশ, পাখি, দ্বীপ, মরুভূমি, শহর, বাঁধ, মসজিদ, পর্বত, প্রাণী, প্রাসাদ, পার্ক, অরণ্য,চিড়িয়াখানা, বন্দর, বিল্ডিং, হোটেল, … ইত্যাদি।
বিস্তারিত