এই দিনে

ইতিহাসে এই দিনে : ১৮ অক্টোবর
বাংলাদেশ

১৮ অক্টোবর ২০০৫

corruption-rank-bd

দুর্নীতিতে বাংলাদেশ আবার শীর্ষে

দুর্নীতিতে বাংলাদেশ টানা পঞ্চমবারের মত বিশ্বের ১৫৯টি দেশের মধ্যে শীর্ষে রয়েছে। এবার বাংলাদেশের সাথে সঙ্গী হয়েছে আফ্রিকার দেশ শাদ। ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে সারা বিশ্বে একযোগে এই রিপোর্ট প্রকাশ করে। গতকাল জাতীয় প্রেসক্লাবে এক সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে এই রিপোর্ট প্রকাশ করেন ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের ট্রাস্টি অধ্যাপক মোজাফ্ফর আহমেদ। দুর্নীতির ধারণা সূচক অনুসারে শাদ এবং বাংলাদেশ একই অবস্থানে রয়েছে। এর পর রয়েছে তুর্কমেনিস্থান, মিয়ানমার, গতবারের যুগ্মভাবে প্রথম হওয়া দেশ হাইতি, নাইজেরিয়া, ইকুয়েটোরিয়াল গিনি, আইভরিকোষ্ট, অ্যাঙ্গোলা এবং ১০ম অবস্থানে রয়েছে উজবেকিস্তান। সবচেয়ে কম দুর্নীতিগ্রস্ত দেশ হিসাবে আছে আইসল্যান্ড। এরপর ক্রমান্বয়ে ফিনল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড, ডেনমার্ক, সিঙ্গাপুর, সুইডেন, সুইজারল্যান্ড, নরওয়ে, অষ্ট্রেলিয়া এবং অষ্ট্রিয়ার অবস্থান । বাংলাদেশ ২০০১ সাল থেকে ট্রান্সপারেন্সির করা দুনীর্তির সূচকে শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে।

সিলেটে বোমা থেকে অল্পের জন্য বেঁচে গেছেন বিচারক

সন্ধ্যায় সিলেট বিভাগীয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক বিপ্লব গোস্বামীকে লক্ষ্য করে একজন আততায়ী বোমা ছুঁড়লে বিচারকের গাড়ীর ড্রাইভারের উপস্থিত বুদ্ধিমত্তার জন্য তিনি ভাগ্যক্রমে বেঁচে যান। বোমাটি বিচারকের বাসার সম্মুখে বিস্ফোরিত হয়। এতে তার ডান পায়ে সামান্য আঘাত লেগেছে। তার পরক্ষণেই অপর একটি বোমা বাসার অদূরে বিস্ফোরিত হয়। ঘটনার পর ঐ যুবক দ্রুত পালিয়ে যেতে চাইলে জনতা তাকে ধাওয়া করে এবং ঐ সময় তার কাছে রাখা অপর একটি বোমা দূরে নিক্ষেপ করে। অবশ্য ঐ বোমাটি বিস্ফোরিত হয়নি। জনতা তাকে বিচারকের বাসার তিনশত গজ দূরে মানিক পীর মাজারের নিকট জাপটে ধরে গণপিটুনি দেয়। যুবকটিকে মুমূর্ষু অবস্থায় ওসমানী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ধৃত যুবকের নাম আখতার (২৫)।

১৮ অক্টোবর ২০১৩

hasina

আরো ঘটনা : বাংলাদেশ
 

মৃত্যু

nojibor

মোহাম্মদ নজিবর রহমান
(১৮৬০ – ১৮ অক্টোবর ১৯২৩)
বাংলা ভাষার ঔপন্যাসিক

মোহাম্মদ নজিবর রহমান ঊনবিংশ শতাব্দীতে সাহিত্যের জগতে প্রবেশ করেছিলেন। তৎকালীন সময়ে একজন ঔপন্যাসিক হিসাবে তিনি ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করেছিলেন। তাঁকে ঊনবিংশ শতাব্দীর বিকাশোন্মুখ মধ্যবিত্ত বাঙালি মুসলমান সমাজের প্রতিনিধি গণ্য করা হয়। তাঁর আনোয়ারা উপন্যাসটি বিষাদসিন্ধুর পর বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের জগতে ব্যাপক জনপ্রিয় একটি উপন্যাস।

তাঁর জন্ম আনুমানিক ১৮৬০ খ্রীস্টাব্দে অবিভক্ত ভারতের বর্তমান সিরাজগঞ্জ জেলার শাহজাদপুর উপজেলার চরবেলতৈল গ্রামে। পরিবারের আর্থিক অবস্খা তেমন সচ্ছল ছিল না। শাহজাদপুর ছাত্র বৃত্তি বিদ্যালয়ের পাঠ শেষ করে ঢাকা নর্মাল স্কুলে ভর্তি হন। ঢাকার নর্মাল স্কুল থেকে পাস করে প্রথমে তিনি জলপাইগুড়ির একটি নীলকুঠিতে চাকরি করেন; পরে শিক্ষকতাকে পেশা হিসেবে গ্রহণ করে সিরাজগঞ্জের ভাঙ্গাবাড়ি মধ্য ইংরেজি বিদ্যালয়, সলঙ্গা মাইনর স্কুল ও রাজশাহী জুনিয়র মাদ্রাসায় চাকরি করেন। কিছুদিন তিনি ডাকঘরে পোস্টমাস্টারের দায়িত্বও পালন করেন। অকঃপর একই জেলার রায়গঞ্জের সলঙ্গা মাইনর স্কুলের হেড পণ্ডিত হিসেবে দায়িত্ব পান। ১৯১০ খ্রীস্টাব্দে বদলি হয়ে রাজশাহী জুনিয়র মাদ্রাসার বাংলার শিক্ষক পদে যোগ দেন। আমৃত্যু তিনি শিক্ষকতা পেশায়ই ছিলেন।

সে কালের মুসলমানদের প্রতি ইংরেজদের অহেতুক বৈরী মনোভাব তিনি তীক্ষ্ণভাবে উপলব্ধি করেছিলেন। অন্য দিকে ১৯০৫ খ্রীস্টাব্দে বঙ্গভঙ্গ আন্দোলনের পর মুসলমানদের প্রতি ইংরেজদের প্রত্যক্ষ বিরোধিতাও তাঁর দৃষ্টি এড়ায়নি। এসব ঘটনার প্রেক্ষাপটে স্বাধীনতা আন্দোলনের ঢেউ তাঁর মনে আলোড়ন তোলে। এ রকম একটি জাতীয় প্রেক্ষাপটে তিনি বিলাতী বর্জন রহস্য নামক একটি পুস্তিকা রচনা করেন। ১৯০৬ খ্রীস্টাব্দে নওয়াব সলিমুল্লাহর নেতৃত্বে ঢাকায় মুসলিম লীগের যে অধিবেশন বসে, তিনি তাতে অন্যতম প্রতিনিধি হিসেবে যোগ দেন। অপর দিকে অন্যায়ের বিরুদ্ধেও ছিলেন অকুতোভয়। সলঙ্গায় শিক্ষকতা করা কালে স্খানীয় হিন্দু জমিদার গরু জবাই ও গো-মাংস ভক্ষণ নিষিদ্ধ ঘোষণা করলে এমত ধর্মীয় অধিকারহরণের বিরুদ্ধে তিনি তীব্র প্রতিবাদ জনাতে থাকেন। তাঁর সংগ্রামের ফলে সলঙ্গায় মুসলমানদের গরু জবাইয়ের অধিকার প্রতিষ্ঠিত হয়। তদুপরি শিক্ষা বিস্তারের মহতী কাজে তিনি আজীবন সংশ্লিষ্ট ছিলেন। ১৮৯২ খ্রীস্টাব্দে তিনি চরবেলতৈল গ্রামে একটি মক্তব প্রতিষ্ঠা করেন; যা পরবর্ততে পূর্ণাঙ্গ বালিকা বিদ্যালয়ে রূপান্তরিত হয়। তাঁর রচিত উপন্যাসসমূহ তীক্ষ্ণ সমাজ সচেতনতার উজ্জ্বল স্বাক্ষর বহন করে।

নজিবর রহমান ইসমাইল হোসেন সিরাজীর (১৮৮০-১৯৩১) প্রত্যক্ষ অনুপ্রেরণায় সাহিত্যকর্মে ব্রতী হন। প্রথম সামাজিক উপন্যাস আনোয়ারা (১৯১৪) লিখে তিনি বেশ জনপ্রিয়তা অর্জন করেন। তাঁর অন্যান্য উপন্যাস: প্রেমের সমাধি (১৯১৫), চাঁদতারা বা হাসান গঙ্গা বাহমণি (১৯১৭), পরিণাম (১৯১৮), গরীবের মেয়ে (১৯২৩), দুনিয়া আর চাইনা (১৯২৪) ও মেহেরুন্নিসা। তা ছাড়া রয়েছে বিলাতী বর্জন রহস্য (১৯০৪) ও সাহিত্য প্রসঙ্গ (১৯০৪) শীর্ষক দুটি আলোচনা গ্রন্থ। নজিবর রহমান তাঁর উপন্যাসে গ্রামীণ মুসলিম পরিবারের অন্তরঙ্গ ছবি তুলে ধরতে সক্ষম হন। সাহিত্যে অবদানের জন্য তিনি ‘সাহিত্যরত্ন’ উপাধি লাভ করেন। ১৯২৩ সালের ১৮ অক্টোবর রায়গঞ্জের হাটি কুমরুল গ্রামে তাঁর মৃত্যু হয়।

সূত্র: উইকিপিডিয়া

জন্ম-মৃত্যু : খ্যাতিমান বাঙালি ব্যক্তিত্ব
 
বহির্বিশ্ব

২০১৭: তিন বছর পর আইএসমুক্ত সিরিয়ার রাক্কা

উপরের ছবিতে দেখা যাচ্ছে Tommie Smith এবং John Carlos দুই আফ্রো-আমেরিকান অ্যাথলেট হাত উঁচু করে যেন বর্ণবাদ বিহীন পৃথিবীর আহবান জানাচ্ছে। আরেক অ্যাথলেট অস্ট্রেলিয়ান Peter Norman,মঞ্চে উঠেছিলেন মানবাধিকার সম্পর্কিত ব্যাজ পরে।

সিরিয়ার রাক্কা শহরটি আইএসমুক্ত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত সিরিয়ান কুর্দিশ এবং আরব যোদ্ধারা রাক্কাকে আইএসমুক্ত করার কথা জানিয়েছেন। রাক্কা আইএসের কথিত রাজধানী ছিল। তিন বছর পর আইএস মুক্ত হলো রাক্কা। ২০১৪ সালে সিরিয়ার এই গুরুত্বপূর্ণ শহরটি দখলে নেয় আইএস। তারা খেলাফত প্রতিষ্ঠা করে এটিকে নিজেদের রাজধানী ঘোষণা দিয়েছিল। গতকাল এসডিএফ গুরুত্বপূর্ণ মিউনিসিপ্যাল স্টেডিয়াম এবং ন্যাশনাল হাসপাতাল থেকে আইএসকে হটাতে সক্ষম হয়। বিজয়ের পর যোদ্ধারা গতকাল স্টেডিয়ামে নিজেদের পতাকা ওড়ায়।

আরো ঘটনা : বহির্বিশ্ব
 

মৃত্যু

Thomas_Edison

টমাস আলভা এডিসন
(১১ ফেব্রুয়ারি ১৮৪৭ – ১৮ অক্টোবর ১৯৩১)
মার্কিন উদ্ভাবক এবং ব্যবসায়ী

টমাস আলভা এডিসন তিনি গ্রামোফোন, ভিডিও ক্যামেরা এবং দীর্ঘস্থায়ী বৈদ্যুতিক বাতি (বাল্ব) সহ বহু যন্ত্র তৈরি করেছিলেন যা বিংশ শতাব্দীর জীবনযাত্রায় ব্যাপক প্রভাব ফেলেছিল। এডিশন ইতিহাসের অতিপ্রজ বিজ্ঞানীদের অন্যতম একজন বলে বিবেচিত, যার নিজের নামে ১,০৯৩টি মার্কিন পেটেন্টসহ যুক্তরাজ্যে, ফ্রান্স এবং জার্মানির পেটেন্ট রয়েছে। গণযোগাযোগ খাতে বিশেষ করে টেলিযোগাযোগ খাতে তার বহু উদ্ভাবনের মাধ্যমে তার অবদানের জন্য তিনি সর্বস্বীকৃত। যার মধ্যে একটি স্টক টিকার, ভোট ধারনকারী যন্ত্র, বৈদ্যুতিক গাড়ির ব্যাটারী, বৈদ্যুতিক শক্তি, ধারনযোগ্য সংগীত এবং ছবি। এসব ক্ষেত্রে উন্নতি সাধনকারী তাঁর কাজগুলো তাঁকে জীবনের শুরুর দিকে একজন টেলিগ্রাফ অপারেটর হিসেবে গড়ে তোলে। বাসস্থান, ব্যবসায়-বানিজ্য বা কারখানায় বিদ্যুৎ শক্তি উৎপাদন ও বন্টনের ধারনা এবং প্রয়োগ দুটিই এডিসনের হাত ধরে শুরু হয় যা আধুনিক শিল্পায়নের একটি যুগান্তকারী উন্নতি। নিউইয়র্কের ম্যানহাটন দ্বীপে তাঁর প্রথম বিদ্যুত কেন্দ্রটি স্থাপিত হয়।

টমাস আলভা এডিসন যুক্তরাষ্ট্রের ওহিও, মিলানে জন্ম গ্রহণ করেন এবং মিশিগান রাজ্যের পোর্ট হুরনে বড় হন। এডিসন ছিলেন স্যামুয়েল অগডেন এডিসন (১৮০৪-১৮৯৬) ও ন্যন্সি ম্যাথিউস এলিয়টের (১৮১০-১৮৭১) সপ্তম এবং সর্বশেষ সন্তান। তাঁর পিতাকে কানাডা থেকে পালিয়ে যেতে হয় কারণ তিনি ম্যাকেনজি বিদ্রোহে অংশ নিয়েছিলেন। তিনি একজন ভাল বিপণন জ্ঞান সম্পন্ন ব্যক্তি ছিলেন। ডিসেম্বর ২৫, ১৮৭১ সালে টমাস আলভা এডিসন ১৬ বছর বয়সি মেরি স্টিলওয়েলকে বিয়ে করেন। তাদের তিনটি সন্তান ছিল। মেরি এডিসন ১৮৮৪ সালের আগস্টের ৯ তারিখে মৃত্যু বরণ করেন। তারপর ওহিওতে টমাস এডিসন ২০ বছর বয়সি মিনা মিলারকে বিয়ে করেন। তিনি বিখ্যাত উদ্ভাবক লুইস মিলারের কন্যা ছিলেন। তাদের তিনটি সন্তান রয়েছে। মহান বিজ্ঞানী এডিসন মারা যান ১৯৩১ সালের ১৭ অক্টোবর। সমাপ্ত ঘটে একটি নিরলস প্রচেষ্টায় গাঁথা কর্মবহুল জীবনের। পৃথিবীতে রেখে যান অসংখ্য আবিষ্কার যা তাঁকে চিরকাল স্মরণীয় করে রাখবে।

সূত্র: উইকিপিডিয়া

জন্ম-মৃত্যু : খ্যাতিমান আন্তর্জাতিক ব্যক্তিত্ব
 

No Beard Day

no-beard-day

“Winning is like shaving – you do it every day or you wind up looking like a bum.” ―Jack Kemp

There’s been a strong movement lately to return to the days when beards were seen as a strong statement of masculinity. In a bold countermovement, No Beard Day comes along to convince men to take a razor to that magnificently furry face and return to a baby smooth complexion. While some of us feel this is nothing worse than purest heresy (unless we can convince those hipsters to shave), No Beard Day adherents feel a clean face is a lovely face.

here is perhaps one strong argument for No Beard Day, and that’s its placement some time before the beginning of “Movember”, where men are encouraged to grow a truly outstanding moustache in recognition of the month. Maybe this holiday was brought into existence for no other purpose than to give the ‘contestants’ of Movember a way to get a fresh start. Likely the result of razor companies trying to take some advantage of the otherwise costly Movember, No Beard Day encourages you to strike out and clean up that face mop you wear the rest of the year.

Surely the most obvious method of celebrating No Beard Day is to clean up that mug and find the lovely baby face underneath it. Boyish charm has been in vogue in recent years, so maybe it’s time to find out if you can still rock that bare face, or perhaps remind you that this is why you grew a beard in the first place. You can also get together with a group of your friends and have a ‘shave it off’ day with them. Sometimes it’s easier to take the plunge into a new look with friends, so get all of your beardiest friends together and terrify their wives or husbands, or make them gleeful by finally getting rid of that old face rug.

দেশেবিদেশে : আজকের ছুটির দিন ও উদযাপনা
 
আজকের উদ্ধৃতি

‘ড. কামাল হোসেনকে প্রেসিডেন্ট প্রার্থী করেছিল আওয়ামী লীগ। মাহমুদুর রহমান মান্না, আ.স.ম. আবদুর রব সবাই তাদের লোক ছিল।কিন্তু তারা এখন আওয়ামী লীগের কাছে খারাপ হয়ে গেছে। কারণ আওয়ামী লীগের খারাপ কাজগুলো পছন্দ করতে না পেরে তারা সবাই দল থেকে বের হয়ে গেছেন। তারা জাতির মুক্তির জন্য ঐক্যবদ্ধ হয়েছেন।’
নজরুল ইসলাম খান : বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য (১৮ অক্টোবর, ২০১৮)


আজকের তারিখ ও এখনকার সময় (বাংলাদেশ)

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।